Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সিটিজেন চার্টার

সিটিজেন চার্টার

ভুমিকাঃস্থানীয় সরকার, পল্লী ‍উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় স্থানীয় সরকার বিভাগের অধীন স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি)স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান সমুহকে কারিগরী সহায়তা প্রদান, পল্লী ও শহরাঞ্চলের অবকাঠামো ‍উন্নয়ন ও রক্ষণাবেক্ষণসহ ক্ষুদ্রাকার পানি সম্পদ উন্নয়নের মাধ্যমে দেশের ‍আর্থসামাজিক অবস্থার ‍উন্নয়ন ও কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টিতে গুরুত্বপূর্ন অবদান রাখছে। একটা সময় ছিল যখন বাংলাদেশে গ্রামীন এলাকার যোগাযোগ অবকাঠামো ছিল অত্যন্ত নাজুক । আজ এলজিইডির মাধ্যমে ব্যাপক ‍উন্নয়ন কর্মকান্ডের মাধ্যমে দেশের সবর্ত্র গ্রামীণ যোগাযোগের ক্ষে‌ত্রে এক বৈপ্লবিক পরিবর্তন এসেছে। আজ গ্রামের উন্নয়নফসল বাজারজাত করণ ও পরিবহন সুবিধা বৃদ্ধি পেয়ে কৃষকদের উন্নয়নপন্যের ন্যায্য মূল্যে প্রাপ্তি নিশ্চিত হচ্ছে।এছাড়াও পরিবেশের ভারসাম্য সংরক্ষণ ও দারিদ্র বিমোচনের লক্ষ্যে সরকারের জাতীয় কর্মসূচি বাস্তবায়নে ও এলজিইডি গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা পালন করছে।বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব অর্থয়নে ও উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার সহায়তায় এলজিইডি বিভিন্ন প্রকল্প ও কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে।

সিটিজেন চার্টার হল জনগণের সেবা পাওয়ার অধিকারের লিখিত সনদ। এর মাধ্যমে জনসাধারণের আশা আকাঙ্খার প্রতিফলন ঘটিয়ে বিদ্যমান সেবাসমুহের মান উন্নয়নের সুযোগ সৃষ্টি হয় | সিটিজেন চার্টারের মাধ্যমে সেবা গ্রহনকারিদের যথাসময়ে সেবা প্রদান নিশ্চিতকরা হয়। সেবা প্রদানকারী কর্তৃপক্ষের কর্মকান্ডের স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও প্রশাসনের গতিশীলতা বৃদ্ধি পায় | সিটিজেন চার্টারের মাধ্যমে সেবা গ্রহণকারী ও প্রদানকারীর মধ্যে পারস্পরিক আস্হা বৃদ্ধি পায় |

এলজিইডির মূখ্য দায়িত্বাবলীঃ

*       পল্লী ও নগর অঞ্চলে ‍অবকাঠামো উন্নয়নের লক্ষ্যে পরিকল্পনা প্রণয়ন, বাস্তবায়ন ও পরিবীক্ষণ;

*       পল্লী অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ;

*       গ্রোথসেন্টvর/হাটবাজার উন্নয়নে পরিকল্পনা প্রণয়ন, বাস্তবায়ন ও পরিবীক্ষণ;

*       ইউনিয়ন, উপজেলা, জেলা পরিষদ ও পৌরসভাকে কারিগরী সহায়তা প্রদান;

*       ইউনিয়ন, উপজেলা ও পৌরসভা প্লানবুক, ম্যাপিং ও সড়ক এবং সামাজিক অবকাঠামোর ডাটাবেজ প্রস্তুতকরণ;

*       ক্ষুদ্রাকার পানি সম্পদ উন্নয়ন পরিকল্পনা, বাস্তবায়ন ও পরিবীক্ষণ;

*       বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের অবকাঠামো উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন ও পরিবীক্ষণ;

*       জনপ্রতিনিধি, উপকারভোগী, ঠিকাদার, চুক্তিবদ্ধ শ্রমিকদলসমূহের সংশ্লিষ্ট উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে প্রশিক্ষণ;

*       ডিজাইন ও অন্যান্য কারিগরী মডেল, ম্যানুয়েল ও স্পেসিফিকেশন প্রণয়ন;

*       এলwজইডি’র কর্মকর্তা/কর্মচারীদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষতা বৃদ্ধি;

এলজিইডির খাতওয়ারী প্রধান প্রধান কর্মকান্ডঃ

গ্রামীণঅবকাঠামো

নগরঅবকাঠামো

ক্ষুদ্রাকারপানিসম্পদউন্নয়ন

*       সড়কনির্মান/পুননির্মাণ/ পুর্নবাসন

*       ব্রিজ/ কালভার্টনির্মাণ/ পুননির্মাণ

*       গ্রোথসেন্টার/হাটবাজারউন্নয়ন

*       ঘাট/জেটিনির্মাণ

*       ইউনিয়নপরিষদভবননির্মাণ

*    উপজেলাপরিষদকমপ্লেক্সভবননির্মাণ

*  ঘূর্নিঝড়/বন্যাআশ্রয়কেন্দ্রনির্মাণ
      /পুননির্মাণ

*  বৃক্ষরোপনকর্মসূচী

*       ক্ষুদ্র-ঋনকর্মসূচী

*       কৃষি, মrস্যওপশুসম্পদউন্নয়ন

*       অবকাঠামোরক্ষণাবেক্ষণ

*       সড়ক/ফুটপাতনির্মাণ/  

*       পুননির্মাণ

*       নর্দমানির্মাণ/ পুননির্মাণ

*       বাস/ট্রাকটার্মিনালনির্মাণ

*       বাজারউন্নয়ন

*       টাউনসেন্টারনির্মাণ

*       স্যানেটারীল্যাট্রিননির্মাণ

*       টিউবওয়েলস্থাপন

*       ক্ষুদ্র-ঋনকর্মসূচী

*       বর্জ্যব্যবস্থাপনা

*       বস্তিউন্নয়নকার্যকªম

*       নগরপরিচালনাউন্নতিকরণ

*       দারিদ্রবিমোচন

*       নগরপ্রশাসনেরসক্ষমতাবৃদ্ধি

*       বাঁধনির্মাণ

*       স্লুইচগেটনির্মাণ

*       রাবারড্যামনির্মাণ

*       খালখননওপুনঃখনন

*       বন্যানিয়ন্ত্রণ, বাঁধনির্মাণ/

*       পুননির্মাণ

*       স্থানীয়পানিব্যবস্থাপনাসমবায় 

*       সমিতিকে(পাবসস) বিভিন্ন

*       কারিগরীওজীবিকাউন্নয়নে

*       সহায়তাপ্রদান

এলজিইডির প্রশাসনিক স্তরঃ

এলজিইডি’র বিস্তৃত কর্মকান্ড পরিচালনার জন্য নিম্নবর্ণিত উপায়ে প্রশাসনিক নেটওয়ার্ক সারাদেশে বিস্তৃত আছে ৷

*  এলজিইডি’র প্রধান প্রকৌশলী দাপ্তরিক প্রধান হিসাবে ‍আগারগাঁও, শেরেবাংলা নগর, ঢাকা-১২০৭ অবস্হিত সদর দপ্তরে এলজিইডি দপ্তর পরিচালনা করছেন। তাছাড়া সদর দপ্তরে ৪জন অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী, ৭জন তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী, ১৭জন নির্বাহী প্রকৌশলীসহ মোট ১৪৬জন কর্মকর্তা কর্মচারী বিভিন্ন ইউনিটে কর্মরত আছেন ৷ সদর দপ্তরে এলজিইডি’র কর্মকান্ড নিম্নবর্ণিত ইউনিটের মাধ্যমে সম্পন্ন হয়ে থাকেঃ

*       প্রশাসন

*       পরিকল্পনা

*       ডিজাইন

*       সমন্বিত পানি সম্পদ ব্যবস্হাপনা(IWRM)

*       পরিবেশ ব্যবস্হাপনা

*       মনিটরিং ও মূল্যায়ন

*       ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম (MIS)

*       জিআইএস (জিওগ্রাফিক্যাল ইনফরমেশন সিস্টেম)

*       নগর ব্যবস্হাপনা

*       মাননিয়ন্ত্রণ

*       প্রশিক্ষণ

*       রক্ষনাবেক্ষণ ব্যবস্হাপনা

*       সড়ক নিরাপত্তা

*       ক্রয় কাযর্ক্রম (Procurement)

*       তথ্য ইউনিট

*  এলজিইডি’র কর্মকান্ড সারাদেশে ১০টি অঞ্চল যেমন, ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, বরিশাল, সিলেট, রংপুর, ময়মনসিংহ, কুমিল্লা এবং ফরিদপুর ‍অঞ্চলের মাধ্যমে বিস্তৃত৷ প্রতিটি অঞ্চলের দায়িত্বে রয়েছেন একজন তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী । প্রতিটি অঞ্চলে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলীর অধীন নির্বাহী প্রকৌশলী এবং সহকারী প্রকৌশলীসহ মোট ৮জন কর্মকর্তা কর্মচারী রয়েছেন-যারা অঞ্চলের আওতাভূক্ত জেলার ন্যস্ত প্রশাসনিক দায়িত্বসহ এলজিইডি’র কর্মকান্ড মনিটরিং ও তদারকী করে থাকেন;

*  ৬৪টি জেলার প্রতিটি জেলা সদরে নির্বাহী প্রকৌশলীর নেতৃত্বে ২জন সহকারী প্রকৌশলীসহ মোট ১৩জন কর্মকর্তা/কর্মচারী জেলার সকল এলজিইডি’র কর্মকান্ড পরিচালনা করছেন । তাছাড়া বৃহত্তর জেলায় ১জন মেকানিক্যাল প্রকৌশলী রয়েছেন;

*  ৪৮২ টি উপজেলার প্রতিটিতে উপজেলা প্রকৌশলীর নেতৃত্বে সহকারী উপজেলা প্রকৌশলীসহ মোট ১৯জন কর্মকর্তা/কর্মচারী উপজেলা পরিষদের উন্নয়ন কার্মকান্ড ও রক্ষণাবেক্ষণ কর্মকান্ড পরিচালনাসহ এলজিইডি’র কার্মকান্ড পরিকল্পনা ও তদারকারীতে নিবার্হী প্রকৌশলীকে সহযোগীতা করে থাকেন।

সেবা সংক্রান্ত অভিযোগ গ্রহণ ও নিষ্পত্তিকরণঃ

সিটিজেন চার্টারের বর্ণিত সেবা নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে যুক্তিসংগত কারণ ব্যতীত প্রদানে ব্যর্থ হলে সংশ্লিষ্ট ভুক্তভোগী লিখিতভাবে সেবা প্রদান কর্তৃপক্ষের নিকট অভিযোগ করতে পারবেন। সেবা প্রদান কর্তৃপক্ষ অভিযোগ পাওয়ার ১৫ (পনের) দিনের মধ্যে অভিযোগকারীর অভিযোগ আমলে নিয়ে বিষয়টি নিষ্পতি করবেন। অভিযোগকারী সেবা প্রদানকারী কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তে সন্তষ্ট না হলে সেবা প্রদানকারী কর্তৃপক্ষের নিয়ন্ত্রণকারী ‍পরবর্তী উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট আপীল আবেদন করতে পারবেন। আপীল কর্তৃপক্ষ আপীল পাওয়ার ১৫ (পনের) দিনের মধ্যে অভিযোগ নিষ্পত্তি করবেন এবং সেবা প্রদানকারী কর্তৃপক্ষকে লিখিত নির্দেশনা দিবেন।